মোজিলা দক্ষিণ এশিয়া আন্ত-কমিউনিটি মিটাপ ২০১৩


The first Mozilla South Asia Inter-Community meet-up has take place in Kathmandu, Nepal, on 23-24 February 2013, with the coordination from Mozilla Nepal Regional community. It will bring together community leaders from the South Asia, including paid staff from across the , to meet for 3 days of presentations, breakout sessions and discussions to plan the implementation of the Mozilla South Asia community road map for 2013 and ensure that the regional community is fully aligned with greater engagement efforts across the Mozilla organization.[]

এই আয়োজনটির জন্য আমি অনেক আগ্রহী ছিলাম। দেশের বাইরে মোজিলার কোন আয়োজনে এটিই ছিলো আমার প্রথম অংশগ্রহন।  দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ (বাংলাদেশ ভারত, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলংকা) এর মোজিলিয়ান এবং কমিউনিটি প্রতিনিধি এই আয়োজনে অংশগ্রহন করেন। এই আয়োজনের মুল উদ্দেশ্য ছিলো ২০১৩ সালে দক্ষিণ এশিয়ায় মোজিলা কমিউনিটির একটি কর্মকাণ্ডের একটি রূপরেখা তৈরী করা।

যাত্রা শুরু

মোজিলা বাংলাদেশ থেকে আমরা তিনজন মোজিলিয়ান (ম্যাক ভাই, রবিন মেহেদি ভাই এবং আমি) এই আয়োজনে অংশগ্রহন করি।  আমাদের যাত্রা শুরু হয় ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৩ তে। বিমান বন্দরে আমি প্রথমে উপস্থিত হয়ে বাকি দুইজনের জন্য অপেক্ষায় ছিলাম। ফ্লাইট যথাসময়েই ছিলো কোন সমস্যা হয়নি এতে। নেপাল বিমান বন্দরে ভিসার জন্য আমাদের প্রায় ১ ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয়েছিলো। এর চেয়ে বেশি সমস্যা হয়নি বিমানবন্দরে।

নতুন মোজিলিয়ানদের সাথে পরিচয়
দেশের বাইরে আয়োজন, যার ফলে নতুন নতুন কমিউনিটি সদস্যদের (মোজিলিয়ান) সাথে পরিচয় হবে। বিমান বন্দর থেকে নেমেই দেখলাম মোজিলা নেপাল এর ২ জন মোজিলিয়ান, মোজিলার ব্যানার হাতে আমাদের জন্য অপেক্ষা করছিলো।  তাদের সাথে কিছু কথা হল, জানতে পারলাম ভারত থেকে আরো কিছু মোজিলিয়ানদের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। কিছুক্ষণ পরেই তারা চলে আসে। প্রোগ্রামের আমার মেন্টরকে আমি সেইদিন প্রথম দেখলাম। মাইক্রোবাস দিয়ে আমাদের হোটেলে নেওয়া হল। হোটেলে দেখলাম এই আয়োজনের মুল সৌম্য দেব এবং যারা আগে হোটেলে এসেছে আমাদের জন্য অপেক্ষা করছে। নতুন মুখ দেখে ভালই লাগে। কিন্তু কথা হল, আমি সেখানে ৫-৬ জন ছাড়া কাউকে চিনি নাই, এমনকি অনেক জনের সাথে ভার্চুয়ালি কথাই বলি নাই। এটাই মনে হয় আসল মজা এমন আয়োজন গুলোর।

হোটেলে চেকইন করে রুমের চাবি নিয়ে রুমে গেলাম বিশ্রাম নিতে। কমিউনিটির একজন সদস্য এসে বলে গেল মোজিলার পক্ষ থেকে আমাদের জন্য দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শুনে খুশি হলাম। হালকা কিছু খেলাম। কিছুক্ষণ পর একটা স্থানীয় কফি দোকানে গেলাম সবাই মিলে। সেখানে একটি ছোট ভুমিকা পর্ব হল। সবাই সবার সাথে পরিচিত হল। তারপর আমরা সবাই হোটেলে ফিরে এলাম। রাতে খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছিলো আমরা যে হোটেলে ছিলাম তার সাথেই একটি রেস্টুরেন্টে। যেখানে আমরা নেপালি খাওয়া উপভোগ করলাম। খাবার শেষে অনেক ক্লান্ত হয়ে গিয়েছিলাম, তাই কারও সাথে কথা বলে সরাসরি রুমে চলে আসি। পরে ম্যাক ভাইয়া আমার জন্য আয়োজনের টিশার্ট নিয়ে আসেন।

আয়োজনের প্রথম দিন

নতুন পরিবেশ হওয়ায় রাতে ঘুম ভালো হয়নি। তারপরেও সকালে ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস আমাকে সকালের নাস্তা সময় মতন করতে সুযোগ করে দিয়েছে। ঠিক সকাল ৮ টায় দরজার নক, সকালে নাস্তা খাবার জন্য ডাক পরল। সময় মত হোটেলের রেস্টুরেন্টে নাস্তা খেলাম। তারপর হোটেলের আলোচনা করার কক্ষে সবাই একত্রিত হলাম আমাদের মূল আয়োজন শুরু করার জন্য। শুরুতেই ছিলো নিজের পরিচয়। পরিচয় পর্বে আমাদের অনেকটা এমন প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছিলো

১। আমার নাম কী?
২। মোজিলার কমিউনিটিতে আমি কিভাবে অবদান রাখি?
৩। ২০১৩ সালে মোজিলা কমিউনিটিতে আমি কিভাবে অবদান রাখব?

525236_544581995563760_1694394326_n

শ্রীলংকা কমিউনিটি

এর সাথে সাথে অনেকে যার যার কমিউনিটির শক্তি, দূর্বলতা এবং হুমকি বা সমস্যা নিয়ে কথা বলেন, যাকে SWOT বলা হয়। মাঝে কিছু সময়ের জন্য চা বিরতি ছিলো।  এই পর্ব শেষে আমরা সবাই হোটেলের রেস্টুরেন্টে দুপুরের খাবার গ্রহন করি।

খাবার শেষে আমরা সবাই “Open Data Day, Nepal” এই আয়োজনে অংশগ্রহন করি। যেখানে মোজিলার কিছু প্রকল্প যেমন ফায়ারফক্স ওএস নিয়ে কথা বলেন রবিন মেহেদি (মোজিলা বাংলাদেশ), সৌম্য দেব (মোজিলা ভারত) এবং আভিনাশ (মোজিলা নেপাল)। ওয়েবে নতুনদের জন্য মোজিলা এমন একটি প্রকল্প নিয়ে কথা বলেন গৌথমরাজ (মোজিলা ভারত)। এরপর মোজিলা কমিউনিটির সবচেয়ে সফল প্রকল্প, স্থানীয়করণ (localization) নিয়ে কথা বলেন ম্যাক (মোজিলা বাংলাদেশ) এবং হুদা সারফ্রাজ (মোজিলা পাকিস্তান)। এরপর এই পর্বের সমাপ্তি করা হয়। আমাদের সাথে ৩ টি ফায়ারফক্স ওএস টেস্ট ড্রাইভ মোবাইল ছিলো, যা আগ্রহী দর্শকদের দেখানো হয়। অনেকে মোজিলা কমিউনিটিতে কিভাবে অবদান রাখবেন তা নিয়ে কথা বলেন, আমি এমন কিছু উৎসুক জনতার সাথে এ বিষয়ে কথা বলি। সবার আগ্রহ ফায়ারফক্স ওএস এ ছিলো তা ভীর দেখে বুঝা যাচ্ছিল। একজন কে দেখলাম ওয়েবমেকার নিয়ে জানতে চাচ্ছে, গৌথামরাজ তার সাথে কথা বলা শুরু করল। অনেক্ষণ কথা বলার পর “Open Data Day” এর সমাপনী টানার জন্য আমরা একটু হল রুমে বসি। সেখানে আলোচনা করা হয় কিভাবে একজন ওপেন সোর্স ব্যবহারকারীকে কিভাবে অবদানকারী বানানো যায়?

549415_544171908938102_823770306_n207238_544172005604759_1119828843_n

এরপর আমরা হোটেলে ফিরে আসলাম, আবার আমাদের সকালের আলোচনা শুরু করলাম। ফিরে এসে আমদের সবাইকে উপহার হিসাবে একটি করে মগ দেওয়া হয়। যেখানে আমাদের সকলের নাম লেখা ছিলো।  সাথে মোজিলা নেপাল এবং আমাদের আয়োজনের লোগোও ছিলো।

mug

সকালের আলোচনা যেখানে বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো, সেখান থেকে আবার শুরু হয়। সবাই যার যার কমিউনিটির সমস্যা এবং কিছু ভালো দিক তুলে ধরেন। সকল কমিউনিটির এই বিষয়গুলো শেষে আমরা রাতের খাবারের জন্য গেলাম একটি রেস্টুরেন্টে। যেখানে আমরা আমাদের কমিউনিটির সমস্যা কিভাবে সমাধান করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করছিলাম।  খাওয়া শেষে হোটেলে ফিরে এসে আমাদের মোজিলা এর পক্ষ থেকে আরো কিছু উপহার দেওয়া হয়। এভাবে আমাদের প্রথম দিনের সমাপ্তি হল।

দ্বিতীয় দিন

যথারীতি সকালের নাস্তায় সকলের সাথে দেখা হল, কথা হল।  নাস্তা খাওয়া শেষে আমরা আমাদের আলোচনা আবার শুরু করলাম। এখন আলোচনা শুরু হয় আমাদের কমিউনিটিতে কী কাজ করছে কী কাজ করছে না?  মজার বিষয় আমাদের বাংলাদেশ কমিউনিটিতে কী কাজ করছে তার তালিকা কী কাজ করছে তার থেকে বেশি :(

541645_544152542273372_404744903_nএরপর শুরু হল নির্দিষ্ট কিছু মোজিলিয়ান কে নির্দিষ্ট কিছু কাজে যুক্ত করা। যারা এই সকল কাজগুলো আগামী ৬-৭ মাস দক্ষিণ এশিয়ার কমিউনিটি উন্নয়নের জন্য করবে।  এরই মাঝে আমরা দুপুরের খাওয়া দুইবার চা পান করেছি।

এই সকল আলোচনা শেষে আমরা সবাই রাতের খাবার গ্রহনের জন্য কাঠমন্ডুর একটি পর্যটন এলাকায় যাই। খাবার শেষে আমরা সবাই হোটেলে ফেরত আসি, এসে নতুন কিছু উপহার পাই।  তারপর যারা উপস্থিত ছিলো তাদের সবাই নিলে একটি ছবি তুলি।

532993_10151215965751116_1574906292_n

এরপর আসে বিদায়ের মুহূর্ত। যারা সকালে নাস্তার আগেই চলে যাবে তাদের সকলকে বিদায় বলার পালা। বিদায় নিয়ে আমরা যার যার রুমে চলে গেলাম।

69253_544162325605727_1051352092_n
এই মিটাপ টি আমাদের সকলের সামনে আমাদের শক্তি, দূর্বলতা কে তুলে ধরেছে। আমরা জানতে পেরেছি আমাদের দূর্বলতা অন্য কমিউনিটি কিভাবে শক্তিতে পরিনত করেছে। আমরা কিভাবে অন্যদের দূর্বলতা আমাদের শক্তিতে পরিনত করেছি। আমাদের সকলের উপর কিছু কাজ করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আশা করি আমাকে দেওয়া কাজগুলো আমি করতে পারবো।

লিংক
[1]

English Post

One thought on “মোজিলা দক্ষিণ এশিয়া আন্ত-কমিউনিটি মিটাপ ২০১৩

  1. Pingback: Mozilla South Asia Inter-Community Meet-up 2013 | আশিকুর রহমানের মুক্ত ভুবন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>